শুভ জন্মদিন “ওস্তাদ জাহাঙ্গীর আলম”

মার্শাল অার্ট গ্র্যান্ড মাস্টার ওস্তাদ জাহাঙ্গীর অালম। তার পরিশ্রমে ঢালিউডে মার্শাল আর্ট ছবি প্রতিষ্ঠিত ও জনপ্রিয় হয়। তারই হাত ধরে রুবেল, মিশেলা, ইলিয়াস কোবরা, ড্যানি সিডাক, শাহিন অালম চলচ্চিত্রে মার্শাল আর্টের ব্যবহার করে। রুবেল সবচেয়ে জনপ্রিয় হয় তার নিজস্ব যোগ্যতায়।
জাহাঙ্গীর অালমের ‘লিনজা, ক্যারাটি মাস্টার, মাস্টার সামুরাই, লড়াকু, পেশাদার খুনী, কুংফু কন্যা, কুংফু নায়ক, ওস্তাদ সাগরেদ, প্রেমিক রংবাজ’ ছবিগুলো মার্শাল অার্টকে তুলে ধরে। পরে রুবেল তার যোগ্য প্রতিনিধির পরিচয় দিয়েছে।
‘মাস্টার সামুরাই’ ছবিটি শুরুর আগে ওস্তাদ জাহাঙ্গীর আলমের জীবনবৃত্তান্ত সংক্ষেপে জানানো হয়। বার্মাতে (বর্তমান মিয়ানমার) তিনি আন্তর্জাতিকভাবে গ্র্যান্ড মাস্টারের পদক পেয়েছিলেন। পদক গ্রহণের ছবিও দেখানো হয়। এই গুরুত্বপূর্ণ তথ্যটি সম্ভবত এদেশের অনেক দর্শকই জানে না। এই পদকপ্রাপ্তি তাঁকে অনেক সম্মান এনে দেয়। ছবিটিতে মার্শাল আর্টের ব্যবহার আছে। নায়িকা ছিল দোয়েল। ‘কুংফু নায়ক, ক্যারাটি মাস্টার, ওস্তাদ সাগরেদ’ ছবিগুলিও গুরুত্বপূর্ণ। একটা ছবিতে দেখা যায় জাহাঙ্গীর আলম মাটি ফুঁড়ে বেরিয়ে আসেন। অন্যরকম এক্সাইটিং ছিল যারা নব্বই দশকের দর্শক তাদের কাছে।
জাহাঙ্গীর আলম প্রথমবার বিয়ে করেন নায়িকা রণ্জিতা-কে। রণ্জিতাকে চেনার সহজ উপায় ‘ঢাকা-৮৬’ ছবির ‘পাথরের পৃথিবীতে কাঁচের হৃদয়’ গানটি। বাপ্পারাজের নায়িকা ছিল। দ্বিতীয়বার বিয়ে করেন নায়িকা রাকা-কে।
শোনা যায় নায়ক জসিমের সাথে জাহাঙ্গীর আলমের পেশাগত বিরোধ ছিল। দুজনই ফাইটার ছিলেন। ফাইট ডিরেক্টর হিশাবে সুনাম ছিল তাঁদের।
জাহাঙ্গীর আলম হতাশাজনকভাবে ২০০০ পরবর্তী অশ্লীল ছবির সময়ে বেশকিছু অশ্লীল ছবিতে অভিনয় করে সমালোচিত হয়েছেন। তাঁর কাছে এরকম ইমেজ কেউ আশা করেনি। তাঁকে নিয়ে লেখালেখি হয়েছিল এ কারণে।
যতদিন মার্শাল অার্টের ভক্ত-দর্শক থাকবে ওস্তাদ জাহাঙ্গীর আলম ঢালিউডে স্মরণীয় হয়ে থাকবেন।
কার্টেসি শ্রদ্ধেয় “রহমান মতি”

Views All Time
Views All Time
1540
Views Today
Views Today
1

Comments

comments

Author: cinemanewsbd

রিয়াদ তানভির রাজ

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *